অনলাইন ডেস্ক 76

আগামী ২০ বছরে ক্যানসারের চেয়েও বেশি মানুষ মরবে অ্যান্টিবায়োটিকে

অনলাইন ডেস্ক : অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্সের কারণে আগামী ২০ বছরে ক্যানসারের চেয়েও বেশি মানুষ মারা যাবে বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম।

 

শনিবার (২৬ আগস্ট) দুপুরে এক সেমিনারে অংশ নিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি ওই মন্তব্য করেন।

নারায়ণগঞ্জের বালুরমাঠ এলাকায় ব্লু পিয়ার মিলনায়তনে সোসাইটি অব সার্জন অব বাংলাদেশের (এসওএসবি) নারায়ণগঞ্জ অঞ্চল এ আয়োজন করে।

 

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেন, অ্যান্টিবায়োটিক রেজিস্ট্যান্স, অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল রেজিস্ট্যান্স সারা পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, এর জন্য বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানগুলোর আগ্রাসী বাজারজাতকরণ ও যত্রতত্র অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি প্রধানভাবে দায়ী।

 

তিনি আরও বলেন, অ্যান্টিবোয়োটিক যে শুধু সার্জনরা বা ফিজিসিয়ানরা ব্যবহার করছেন, তা না। এই অ্যান্টিবায়োটিক এখন কৃষিতে ব্যবহার করা হচ্ছে। পোলট্রি শিল্পে ব্যবহার করা হচ্ছে। এমনকি মশার লার্ভা মারতেও কিছু ক্ষেত্রে অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার হচ্ছে। এটিকে প্রতিরোধ করার জন্য আমাদের দাবি হলো ওয়ান হেলথ ওয়ান হার্ট।

 

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বলেন, খোলা বাজারে যেভাবে অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি হচ্ছে তা প্রতিরোধে বাংলাদেশ সরকার ড্রাগস অ্যান্ড কসমেটিক্স আইন করার উদ্যোগ নিয়েছিল। কিন্তু বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য সেই আইন বাস্তবায়ন করা যায়নি।

 

বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানের ভূমিকা নিয়ে তিনি আরও বলেন, সেফালোস্পোরিনের পরে অ্যান্টিবায়োটিকের মৌলিক কোনো উপাদান আবিষ্কার হয়নি। এই সেফালোস্পোরিনের গঠন পরিবর্তন করে বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের পণ্য বাজারে ছাড়ছে। তাদের আগ্রাসী বাজারজাতকরণ অভ্যাসের কারণে আমরা সাধারণ জনগণ ও চিকিৎসকরা (সার্জন) এগুলো ব্যবহার করছি। আমরা এগুলো ব্যবহার করছি জেনে না জেনে, প্রয়োজনে এবং অপ্রোয়জনে।

 

সেমিনারে ডা. এসএম ইফতেখার উদ্দীন সাগর সঞ্চালনা করেন। সভাপতিত্ব করেন ডা. একেএম শরিফুল আলম ফেরেদৌস। এতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. এফএম মুশিউর রহমান, ৩০০ শয্যা হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আবুল বাশার, বিএমএ নারায়ণগঞ্জের সভাপতি ডা. চৌধুরী মো. ইকবাল বাহার। 
 

এই বিভাগের আরও খবর

মানবদেহেই পাওয়া যাবে ক্যানসারের প্রতিষেধক: গবেষণা
মানবদেহেই পাওয়া যাবে ক্যানসারের প্রতিষেধক: গবেষণা

মানবদেহেই পাওয়া যাবে ক্যানসারের প্রতিষেধক: গবেষণা

প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ১৫০০ কিডনি প্রতিস্থাপনের মাইলফলক
প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ১৫০০ কিডনি প্রতিস্থাপনের মাইলফলক

প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ১৫০০ কিডনি প্রতিস্থাপনের মাইলফলক

ডেঙ্গুর প্রথম ওষুধের ট্রায়ালে দারুণ সাফল্য
ডেঙ্গুর প্রথম ওষুধের ট্রায়ালে দারুণ সাফল্য

ডেঙ্গুর প্রথম ওষুধের ট্রায়ালে দারুণ সাফল্য

দেশে ডেঙ্গু টিকার সফল পরীক্ষা, চার ধরনেই কার্যকর
দেশে ডেঙ্গু টিকার সফল পরীক্ষা, চার ধরনেই কার্যকর

দেশে ডেঙ্গু টিকার সফল পরীক্ষা, চার ধরনেই কার্যকর

‘সাত মিনিটের ক্যান্সার চিকিৎসা’ শুরু হচ্ছে ইংল্যান্ডে
‘সাত মিনিটের ক্যান্সার চিকিৎসা’ শুরু হচ্ছে ইংল্যান্ডে

‘সাত মিনিটের ক্যান্সার চিকিৎসা’ শুরু হচ্ছে ইংল্যান্ডে

আগামী ২০ বছরে ক্যানসারের চেয়েও বেশি মানুষ মরবে অ্যান্টিবায়োটিকে
আগামী ২০ বছরে ক্যানসারের চেয়েও বেশি মানুষ মরবে অ্যান্টিবায়োটিকে

আগামী ২০ বছরে ক্যানসারের চেয়েও বেশি মানুষ মরবে অ্যান্টিবায়োটিকে

ফাইজারের ব্লাড ক্যানসার থেরাপির অনুমোদন দিল যুক্তরাষ্ট্র
ফাইজারের ব্লাড ক্যানসার থেরাপির অনুমোদন দিল যুক্তরাষ্ট্র

ফাইজারের ব্লাড ক্যানসার থেরাপির অনুমোদন দিল যুক্তরাষ্ট্র

‘ক্যানসারের উৎস হত্যায় সক্ষম’ ওষুধের উদ্ভাবন যুক্তরাষ্ট্রে
‘ক্যানসারের উৎস হত্যায় সক্ষম’ ওষুধের উদ্ভাবন যুক্তরাষ্ট্রে

‘ক্যানসারের উৎস হত্যায় সক্ষম’ ওষুধের উদ্ভাবন যুক্তরাষ্ট্রে

৮০ শতাংশের ওপরে কার্যকর, ডেঙ্গুর ভ্যাকসিন প্রয়োগে গুরুত্বারোপ
৮০ শতাংশের ওপরে কার্যকর, ডেঙ্গুর ভ্যাকসিন প্রয়োগে গুরুত্বারোপ

৮০ শতাংশের ওপরে কার্যকর, ডেঙ্গুর ভ্যাকসিন প্রয়োগে গুরুত্বারোপ

আতঙ্কের নাম ডেঙ্গু, দীর্ঘ হচ্ছে লাশের সারি
আতঙ্কের নাম ডেঙ্গু, দীর্ঘ হচ্ছে লাশের সারি

আতঙ্কের নাম ডেঙ্গু, দীর্ঘ হচ্ছে লাশের সারি

সেন্ট্রালের দুই চিকিৎসকের মুক্তির দাবি চার সংগঠনের
সেন্ট্রালের দুই চিকিৎসকের মুক্তির দাবি চার সংগঠনের

সেন্ট্রালের দুই চিকিৎসকের মুক্তির দাবি চার সংগঠনের

কৃত্রিম মিষ্টি ক্যান্সারের সম্ভাব্য কারণ : ডব্লিউএইচও
কৃত্রিম মিষ্টি ক্যান্সারের সম্ভাব্য কারণ : ডব্লিউএইচও

কৃত্রিম মিষ্টি ক্যান্সারের সম্ভাব্য কারণ : ডব্লিউএইচও

close