নতুন বিশ্ব রেকর্ডের সঙ্গে ওয়াসিম-মালিঙ্গাদের পাশে সাকিব

0
16
new

নতুন এক বিশ্ব রেকর্ড গড়লেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। সেই সঙ্গে নিজের নাম লেখালেন ওয়াসিম আকরাম, লাসিথ মালিঙ্গাসহ অন্য লেজেন্ডদের পাশে।

দুইটি দারুণ মাইলফলকে নিজের নাম লেখাতে একটি উইকেট ও একটি ডট বল প্রয়োজন ছিল সাকিব আল হাসানের। উইকেট পেতে ১১তম ডেলিভারি পর্যন্ত সময় নিলেও, ডট বলের জন্য মাত্র চার বল খরচ করেছেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। যার সুবাদে গড়ে ফেলেছেন বিশ্ব রেকর্ড।

nagad 011
বিজ্ঞাপন

আজ চার ওভারে মাত্র ১৮ রান দিয়ে দুই উইকেট নিয়েছেন সাকিব। যেখানে ছিল ১১টি ডট বল। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে তিনিই এখন সর্বোচ্চ ডট বল করা বোলার। আজ নিজের প্রথম ডটের মাধ্যমেই গড়েছেন এই রেকর্ড।

আফগানদের বিরুদ্ধে মাঠে নামার আগে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ৯৩ ইনিংসে ২০৮৫ ডেলিভারি থেকে ৮৩০টি ডট বল করার রেকর্ড ছিল সাকিবের। ঠিক ৮৩০টি ডট বল ছিল পাকিস্তানের সাবেক অলরাউন্ডার শহিদ আফ্রিদিরও। তিনি ২১৬৮ ডেলিভারির মধ্যে করেছিলেন ৮৩০টি ডট।

আজ আফ্রিদিকে টপকে সাকিব হয়ে যান সর্বোচ্চ ডট বল করা বোলার। আজকের ম্যাচের পর সাকিবের ডট বলের সংখ্যা ৮৪১টি।

বিজ্ঞাপন

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে সবচেয়ে বেশি ডট বল:

১. সাকিব আল হাসান – ৮৪১ বল
২. শহীদ আফ্রিদি – ৮৩০ বল
৩. টিম সাউদি – ৭৯১ বল
৪. লাসিথ মালিঙ্গা – ৭১৩ বল
৫. মোহাম্মদ নবি – ৬২৭ বল

একই ম্যাচে আরও একটি অনন্য মাইলফলক স্পর্শ  করেছেন সাকিব। বিশ্বের প্রথম বাঁহাতি স্পিনার, তৃতীয় স্পিনার ও নবম বোলার হিসেবে সাদা বলের ক্রিকেট তথা ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি মিলিয়ে ৪০০ উইকেট শিকার করেছেন তিনি। বর্তমানে ৩১৩ ম্যাচে তার রয়েছে ৪০১টি উইকেট।

আফগানদের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ শেষে একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাকিবের উইকেট সংখ্যা দাঁড়ায় ২৮২। আর কুড়ি ওভারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আগেই ছিল ১১৭ উইকেট। আজ মোহাম্মদ নবীকে ফিরিয়ে সাদা বলের ক্রিকেটে ৪০০ উইকেট পূরণ করেন তিনি। পরে নাজিবউল্লাহ জাদরানের উইকেটও নিয়েছেন তিনি।

বিজ্ঞাপন

সাদা বলের ক্রিকেটে (ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি) ন্যুনতম ৪০০ উইকেট:

১. মুত্তিয়া মুরালিধরন – ৩৬২ ম্যাচে ৫৪১ উইকেট
২. ওয়াসিম আকরাম – ৩৫৬ ম্যাচে ৫০২ উইকেট
৩. শহীদ আফ্রিদি – ৪৯৭ ম্যাচে ৪৯৩ উইকেট
৪. লাসিথ মালিঙ্গা – ৩১০ ম্যাচে ৪৪৫ উইকেট
৫. ওয়াকার ইউনিস – ২৬২ ম্যাচে ৪১৬ উইকেট
৬. শন পোলক – ৩১৫ ম্যাচে ৪০৮ উইকেট
৭. ব্রেট লি – ২৪৬ ম্যাচে ৪০৮ উইকেট
৮. চামিন্দা ভাস – ৩২৮ ম্যাচে ৪০৮ উইকেট
৯. সাকিব আল হাসান – ৩১৩ ম্যাচে ৪০১ উইকেট

বিজ্ঞাপন